এই ত্রাণ বিতরণ কি আমাদের পরিত্রাণ দেবে?

এই ত্রাণ বিতরণ কি আমাদের পরিত্রাণ দেবে?
১৩ এপ্রিল
  • habib zakaria
  • সামাজিক সমস্যা
  • 121 বার পড়া হয়েছে

প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললে কিংবা অনলাইন পোর্টাল অথবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চোখ আটকে যায় দেশের আনাচে কানাচে ত্রাণ বিতরণের খবর ও ছবিতে। মন আনন্দে ভরে ওঠে আমরা মানবিক হতে পেরেছি দেখে। সরকারের পাশাপাশি প্রশাসন, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং ব্যক্তি উদ্যোগেও ত্রাণ বিতরণ হচ্ছে প্রতিদিন। এসব আমাদের সাহস যোগায়, স্বপ্ন দেখায়। কিন্তু এই সাহসের নামে দুঃসাহস যেন দুঃস্বপ্ন ডেকে না আনে।

গত কয়েকদিন ধরেই একটি শব্দ নিয়ে খুব বিতর্ক হচ্ছে, আর তা হচ্ছে সামাজিক দূরত্ব নাকি শারিরীক দূরত্ব?  অনেক বোদ্ধা সাংবাদিক এবং মনোবিজ্ঞানীদের মতামতে অবশেষে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সামাজিক দূরত্ব না বলে শারীরিক দূরত্ব বলা শুরু করেছে । সামাজিক দূরত্ব হোক কিংবা শারীরিক দূরত্ব মূলত কোভিড-১৯ নামক কোরনা ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পেতে হলে ঘরের বাইরে একজন থেকে অপর জন নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করতে হবে। সারাবিশ্বে যখন এই অবস্থানকে নিশ্চিত করার জন্য চলছে লকডাউন, আমাদের দেশেও এই সামাজিক বা শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করার জন্য সবাইকে ঘরে থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে, দেয়া হয়েছে সাধারণ ছুটি, রাস্তায় নামানো হয়েছে পুলিশ ও সেনাবাহিনী।

কিন্তু গাদাগাদি হয়ে কয়েকজন মিলে হাসিমুখে যখন একজনের হাতে ত্রাণ তুলে দিয়ে ক্যামেরায় পোজ দেন, তখন আমরা ভুলে যাচ্ছি সামাজিক বা শারীরিক দূরত্বের কথা। আর এসব ত্রাণ বিতরণের খবর যখন গরীব, অসহায়-দুস্থঃ মানুষের কাছে পৌঁছে তখন  আর তারা  ঘরে থাকছে না।  ত্রাণের আশায় বেরিয়ে আসছে ঘর থেকে। তখন স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন জাগে এই ত্রাণ বিতরণ কি আমাদের পরিত্রাণ দেবে?  যেসব মানবিক ব্যক্তিগণ ও সংগঠন কিংবা প্রশাসন অথবা সরকারিভাবে যারা সাহায্য, সহযোগিতা অথবা ত্রাণ বিতরণ করছেন, তাদের কাছে অনুরোধ, সবচেয়ে ভালো হয় যদি এসব ত্রাণ অসহায়-দুস্থঃ মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেয়া যায় অথবা অন্ততঃ সামাজিক বা শারীরিক দূরত্বের নির্দেশনা পালন করা হয়। দেশ ও জাতি এইসব শিক্ষিত ও মানবিক মানুষদের কাছে এতটুকুন আশা করতেই পারে।

জাকারিয়া হাবিব, গণমাধ্যম কর্মী ও স্টেশন ম্যানেজার, প্রান্তিক অনলাইন টেলিভিশন

শেয়ার করুন